ঢাকা, শনিবার , ২৫ নভেম্বর ২০১৭, | ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ | ৬ রবিউল-আউয়াল ১৪৩৯

আইসিসিবিতে ইন্টেরিয়র ও লাইটিং প্রদর্শনী

110356icb

অত্যাধুনিক প্রযুক্তি আর উদ্ভাবন তুলে ধরতে রাজধানীতে শুরু হয়েছে ইন্টেরিয়র ও লাইটিং সংশ্লিষ্ট পণ্যের দুটি প্রদর্শনী।
বৃহস্পতিবার ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার (আইসিসিবি) একই ছাদের নিচে ‘ইন্টেরিয়র-এক্সটেরিয়র ইন্টারন্যাশনাল এক্সপো-২০১৬’ এবং ‘বাংলাদেশ লাইটিং এক্সপো-২০১৬’ নামে এই দুই প্রদর্শনীর উদ্বোধন হয়।
প্রদশর্শনীর উদ্বোধন করেন ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি’র (আইবিবিসিআই)-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট দেওয়ান সুলতান আহমেদ।
ইন্টেরিয়র প্রদর্শনীতে দর্শনার্থীরা ইন্টেরিয়র প্রদর্শনীতে দর্শনার্থীরা তিন দিনব্যাপী এ প্রদর্শনী চলবে শনিবার পর্যন্ত; প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত প্রদর্শনী সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে বলে উদ্বোধনীতে জানান প্রদর্শনীর ব্যবস্থাপনায় থাকা এএসকে ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশনস প্রাইভেট লিমিটেডের পরিচালক নন্দ গোপাল কে।
গৃহ সজ্জা শিল্পের ব্যতিক্রমী ও বৈচিত্র্যপূর্ণ পণ্যের আইডিয়া এবং উপযোগিতা নির্বাচনে আগ্রহীদের জন্য উদ্ভাবনী ইন্টেরিয়র এবং এক্সটেরিয়র পণ্যের প্রদর্শনী দুটি পারটেক্স স্টার গ্রুপ ও সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেড যৌথভাবে আয়োজন করেছে।
এই মেলায় বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ডের পণ্য-সামগ্রী এবং সর্বাধুনিক সংগ্রহ প্রদর্শন করা হচ্ছে বলে জানান প্রদর্শনীটির ব্যবস্থাপক টিপু সুলতান ভুঁইয়া।
তিনি বলেন, “দর্শনার্থীরা ইন্টেরিয়রের জন্য অত্যাধুনিক ডিজাইনের টাইলস, বৈচিত্র্যপূর্ণ আসবাবপত্র, আধুনিক ডেকোরেটিভ গ্লাস, ওয়াল ডেকোরেশন ইত্যাদি পণ্য দেখার সুযোগ পাবেন এই প্রদর্শনীতে।”
আয়োজকরা জানান, মেলায় বাংলাদেশসহ চীন ও ভারতের শীর্ষস্থানীয় ব্রান্ডের গৃহসজ্জার পণ্যসামগ্রী স্থান পেয়েছে।
প্রদশর্নীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান প্রদশর্নীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান এর মধ্যে ভ্যাস, ভিনিল (পিভিসি) ফ্লোর, ডেকোরেটিভ ওয়াল টাইলস, প্লাইউড, ভিনার বোর্ড, মেলামাইন বোর্ড, এমডিএফ অ্যান্ড এইচডিএফ বোর্ড, পিভিসি সিট, কপার বাসবার, দরজা, আসবাবপত্র, উডেন ফ্লোর, পার্টিকেল বোর্ড, জলি কাটিং, প্ল্যান্টেড একুরিয়াম, ফাউনটেইনস, কিচেন কেবিনেট অ্যান্ড কেবিনেট ডোরস, ডেকোরেটিভ গ্লাস, ওয়াল পেপার, এলুমিনিয়াম এম্পোজিট প্যানেল, ফলস সিলিং, ডেকোরেটিভ প্যানেলস, গ্লাস পেপার, স্টেয়ার রেলিং পোস্ট, এসএস পাইপ, রুফিং ইত্যাদি রয়েছে।
এছাড়া লাইটিং প্রদর্শনীতে এলইডি, সিএফএল লাইট, এলইডি প্যানেল লাইট, ঝারবাতি, রুম হিটারসহ বিভিন্ন ধরনের লাইট ও ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী স্থান পেয়েছে।
প্রদর্শনীতে পারটেক্স স্টার গ্রুপ ও সাইফ পাওয়ার টেক লিমিটেড ছাড়াও রিগ্যাল ফার্নিচার, ওয়ালটন গ্রুপ, অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ সোলার পাওয়ার, বাংলাদেশ লাইট লিমিটেডসহ ২৬ টি কোম্পানির ৬৫টি স্টল থাকছে বলে জানিয়েছে আয়োজকরা।
এই প্রদর্শনীর সব উপকরণই মানুষের দৈনন্দিন জীবনে বেশ গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য করে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের অতিথি সুলতান আহমেদ বলেন, “আশা করবো এই প্রদর্শনীর মাধ্যমে বাংলাদেশে দেশীয় পণ্যের প্রসার আরও বৃদ্ধি পাবে।”
গৃহসজ্জার ইন্টেরিয়র এবং এক্সটেরিয়র পণ্য নিয়ে এই প্রদর্শনীই এযাবতকালে দেশের সবচেয়ে বড় মেলা দাবি করে পারটেক্স স্টার গ্রুপের চিফ অপারেটিং মো. কামরুজ্জামান  বলেন, এই প্রদর্শনীর মাধ্যমে দেশীয় পণ্যের ব্যপ্তি ও গুণগত মান সম্পর্কে দেশের মানুষ আরো অবহিত হবে।
সাইফ পাওয়ার টেক লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, “এই মেলায় আমাদের প্রদর্শিত পণ্যে আমরা এলইডি প্রযুক্তি ব্যবহার করেছি, যা বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী।”
মেলার মাধ্যমে এলইডি পণ্য ব্যবহারে মানুষদের আরও সচেতন করা তাদের অন্যতম লক্ষ্য বলেও জানান তিনি।
পণ্যের দাম বেশি বলে মন্তব্য করেন ইকবাল হোসেন নামে এক দর্শনার্থী। তিনি বলেন, “এরকম বড় পরিসরে মেলা দেশে এই প্রথম দেখছি। তবে মেলাগুলোতে ব্যবসায়িক লাভ চিন্তা না করে পণ্যের প্রসারে প্রাধান্য দেয়া উচিৎ।”
তবে পণ্যের ‘মান’ বিবেচনায় দাম ‘যথার্থ’ বলে দাবি করছেন পারটেক্স স্টার গ্রুপের চিফ অপারেটিং মো. কামরুজ্জামান। তিনি বলেন, “আমাদের পণ্য সামগ্রী অত্যন্ত উন্নত এবং আন্তর্জাতিক মানের। তাই দাম কিছুটা বেশি মনে হলেও সত্যিকার অর্থে তা নয়।”