ঢাকা, শনিবার , ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, | ৮ আশ্বিন ১৪২৪ | ২ মুহাররম ১৪৩৯

ট্রাম্পের অনুমোদন সর্বনিম্নে

Trump

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আরোপিত ৭টি মুসলিম দেশের বিরুদ্ধে দেয়া ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার বিরোধী বেশির ভাগ মার্কিনি।

গত ২৭শে জানুয়ারি নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে ৭টি দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণ নিষিদ্ধ করেন তিনি। তারপর শুরু হয় তীব্র বিক্ষোভ। তা এখনও চলছে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে। বিশেষ করে শুক্রবার ওয়াশিংটনের একজন কেন্দ্রীয় বিচারক জেমস রবার্ট ওই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা অস্থায়ী সময়ের জন্য স্থগিত করেন। সঙ্গে সঙ্গে প্রশাসন থেকে বলা হয় সরকার এর বিরুদ্ধে আপিল করবে।

এ প্রক্রিয়া শনিবার সেখানে শুরু হয়েছে। কিন্তু ট্রাম্পের এই নীতির বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র, বৃটেনসহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ হচ্ছে। সিএনএন/ওআরসি এ নিয়ে জরিপ পরিচালনা করেছে। তাতে দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক প্রেসিডেন্টদের মধ্যে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অনুমোদন সর্বনিম্নে।

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার অনুমোদনের শতকরা হার ৭৬ ভাগ। জন এফ কেনেডির অনুমোদন শতকরা ৭২ ভাগ। আইজেন হাওয়ারের অনুমোদন ৬৮ ভাগ। রিচার্ড নিক্সনের অনুমোদন ৫৯ ভাগ। বিল ক্লিনটনের অনুমোদন ৫৯ ভাগ। জর্জ ডব্লিউ বুশের অনুমোদনের হার ৫৮ ভাগ। জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশের অনুমোদনের হার ৫৭ ভাগ। রিগ্যানের অনুমোদনের হার ৫১ ভাগ। আর ডোনাল্ড ট্রাম্পের অনুমোদনের হার শতকরা ৪৪ ভাগ।

অন্যদিকে শতকরা ৫৫ ভাগ মানুষ বলছে ৭টি দেশের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা মুসলিমদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ বন্ধ করার জন্য। এ ছাড়া মেক্সিকো সীমান্তে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যে দেয়াল নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন তার বিরোধিতা করেন প্রতি ১০ জনে ৬ জন। অর্থাৎ শতকরা ৬০ ভাগ মানুষ মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের বিরোধিতা করে। তবে সব মিলিয়ে শতকরা ৪৭ ভাগ মানুষ ট্রাম্পের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার পক্ষে। তবে এ আদেশের ঘোরবিরোধী শতকরা ৫৩ ভাগ মানুষ।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এই নিষেধাজ্ঞা হলো যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিমদের প্রবেশ বন্ধের পদক্ষেপ। শতকরা ৮২ ভাগ মানুষ এমনটা মনে করে। নিষেধাজ্ঞা দেয়ার আগে, সময়ে ও পরে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বারবারই বলেছেন, এটা করা হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা ও মার্কিন মূল্যবোধকে রক্ষা করতে। কিন্তু জরিপে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে এ নিয়ে বিভক্তি দেখা দিয়েছে। শতকরা ৪১ ভাগ মানুষ মনে করেন ট্রাম্প যে কথা বলেছেন তা সঠিক। তিনি যুক্তরাষ্ট্রকে নিরাপদ করতে এটা করেছেন।

তবে শতকরা ৪৬ ভাগ মানুষ বলেছে, এতে যুক্তরাষ্ট্র সন্ত্রাসের কারণে অধিক নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়বে। শতকরা ৪৮ ভাগ মানুষ মনে করেন, ট্রাম্পের এই নির্দেশ আমেরিকার মূল্যবোধের ক্ষতি করবে। কারণ, এর মাধ্যমে ওইসব মানুষকে বিচ্ছিন্ন করে রাখা হবে যারা আশ্রয় চান। শতকরা ৪৩ ভাগ মানুষ বলেছেন, তারা মনে করেন না এসব মানুষকে বাইরে রেখে আমেরিকার মূল্যবোধ রক্ষা হবে।