ঢাকা, রবিবার , ১৯ আগস্ট ২০১৮, | ৪ ভাদ্র ১৪২৫ | ৭ জিলহজ্জ ১৪৩৯

পাকিস্তানকে ১৪ গোলের বন্যায় ভাসালো বাংলাদেশ

পাকিস্তানকে গোলের বন্যায় ভাসিয়ে ভূটানের মাটিতে অ-১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নশীপে যাত্রা শুরু করেছ বাংলাদেশের মেয়েরা। গত আসরের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা `দুর্বল‘ পাকিস্তানের দলটাকে যে উড়িয়ে দিবে তা অনুমিতই ছিল। দেখার অপেক্ষা ছিল কতগুলো গোল করে।

সেটাই হলো। অনেকটা মুড়িমুরকির মতো গোল দিলো বাঘিনীরা। বৃহস্পতিবার থিম্পুর চানগ্লিমিথান স্টেডিয়ামে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম ম্যাচে ১৪ বার পাকিস্তানের জালে বল জড়িয়েছে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।

প্রথম মিনিটেই গোলের সুযোগ পায় বাংলাদেশ। মিস করেন নম্বর টেন তহুরা। তার এক মিনিট পরেই তহুরা বল জালে জড়ালেও তা বাতিল হয় অফসাইড ফাঁদে পড়ে। এটা অবশ্য পুষিয়ে দিয়েছে ম্যাচের পাঁচ মিনিটের মাথায়। পাঁচ মিনিটেই গোলের খাতা খুলেন তহুরা খাতুন। ডি বক্সের ভেতরে বল পেয়ে আলতো টোকায় গোল করেন এই নম্বর টেন।

১৭ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ (২-০) করেন মনিকা চাকমা। ফ্রি-কিক থেকে বাঁ পায়ে গোলবারের কোণাকুণি শটে গোলরক্ষককে বোকা বানান।

১৯ মিনিটেই ৩-০ ব্যবধান গড়েন তহুরা। নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন হেডে। ডি বক্সের বাইরে থেকে আসা উড়ন্ত পাস থেকে মাথা ছুঁয়ে দেন তিনি।

৩১ মিনিটে শামসুন্নাহারের আরেকটি গোল করে ব্যবধান ৪-০ বানান। সিক্স ইয়ার্ডের ভেতরে গোলকিপারের ভুলে বল পেয়ে যান তিনি। আলতো শটে বল জালে জড়াতে শুধু টোকাটা দিতে হয়ে তাকে। গোলের ফুলঝুড়িতে অধিনায়ক বাদ যাবেন কেন? ৩৯ মিনিটে মারিয়ার পা থেকে। ডি বক্সের ভেতরে আসা পাস থেকে গোলবারের কোণা বরাবর বল পাঠান এই ময়মনসিংহের ফুটবলার (৫-০)।

গোলের উদযাপনের রেশ কাটতে না কাটতেই পাকিস্তানের জালে আরেকটি দুর্দান্ত গোল আসে আঁখি খাতুনের কাছ থেকে। ডি বক্সের অনেক দূর থেকে নেয়া গতির শট রুখতে পারে নি পাকিস্তান।বল নিখুতভাবে ঠিকানা খুঁজে পায় জালে।

প্রথমার্ধ্বে ৬-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আক্রমণে যায় মারিয়া-তহুরারা।পাকিস্তানের উপরে কিভাবে স্টিম রোলার চালিয়েছে তার একটা পরিসংখ্যান দেয়া যাক। প্রথমার্ধ্বে গোলবারে ৩০ টি শট নিয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। তার ২১টিই টার্গেটে।

দ্বিতীয়ার্ধ্বের দুই মিনিটের মাথায় স্কোরলাইন দাঁড়ায় ৭-০। গোল পান সাজেদা খাতুন। পাকিস্তানের জালে আরও একটি গোল করে বাঘিনীরা তার এক মিনিট পরেই (৮-০)। ৫৩ মিনিটে দলের হয়ে প্রথম হ্যাটট্রিক করেন শামসুন্নাহার।ডি বক্সের ডান প্রান্ত থেকে ‍নিখুতভাবে বল জালে জড়ান তিনি।

৫৭ মিনিটে পাকিস্তানের জালে ফের হামলা চালান শামসুন্নাহার। তা পা থেকে বাংলাদেশের নয় নম্বর গোলটি আসে (১০-০)।৫৮ মিনিটে এবার গোল করে ব্যবধান বাড়ান সাজেদা খাতুন (১১-০)। নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন তিনি। ৫৯ মিনিটে গোল করে ডজন পূরণ করেন ডিফেন্ডার আনাই মগিনি (১২-০)। (৫৭-৫৯) তিন মিনিটে তিন গোল করে বাংলাদেশ। পরে আনাই মগিনি ও শামসুন্নাহার পান আরও একটি করে গোল। এ নিয়ে তার গোল হয় পাঁচটি।

বাংলাদেশের মেয়েরা তাদের দ্বিতীয় ম্যাচটি খেলবে নেপালের সঙ্গে। ১৩ আগস্টে। এ জয়ে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে থাকবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।


%d bloggers like this: