ঢাকা, মঙ্গলবার , ২৩ জুলাই ২০১৯, | ৮ শ্রাবণ ১৪২৬ | ১৯ জিলক্বদ ১৪৪০

‘আল্লাহ যদি চায় অবশ্যই তারেককে ফিরিয়ে আনতে পারব, শাস্তি দিতে পারবো’

আনতে পারব

‘অবশ্যই আমি বিশ্বাস করি, আল্লাহ যদি চায়, আগামী নির্বাচনে যদি আবার আমরা ফিরে আসতে পারি, এর মাঝে অবশ্যই আমরা তাকে ফিরিয়ে আনতে পারব। শাস্তি দিতে পারব- এই বিশ্বাস আমার আছে।’ জাতীয় সংসদে এক প্রশ্নের উত্তরে এমন মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তারেক রহমানের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছে। তাকে ফিরিয়ে আনার জন্য ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে আমরা আলাপ-আলোচনা করছি।

২৪ অক্টোবর বুধবার বিকেলে দশম জাতীয় সংসদের চলমান অধিবেশনে সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য ফজিলাতুন্নেসা বাপ্পীর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা, একটি দল ক্ষমতায়। বিএনপি-জামায়াত জোট এবং তাদেরই প্ররোচনা, তাদেরই সৃষ্টি করা একটা আঘাত সেদিন হেনেছিল প্রকাশ্য দিবালোকে। যেখানে আমরা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে শান্তির জন্য একটা র‌্যালি করছি- আর সেখানেই আক্রমণটা হয়।

সত্যকে কখনও চাপা দিয়ে রাখা যায় না। সত্য বের হবেই। আজকে সেই মামলা চলতে চলতেই সত্য বেরিয়ে এসেছে এবং আসামিরা সাজা পেয়েছে। আমি বেঁচে গিয়েছিলাম, কারণ আমার নেতা-কর্মীরা আমাকে একেবারে মানবপ্রাচীর সৃষ্টি করে তারা আমাকে রক্ষা করেছিল। আইভি রহমানসহ দলের প্রায় ২২ জন নেতা-কর্মী ওই মুহূর্তে মারা যায়, অনেকে পরবর্তীতে মারা যায়। সেই হত্যার যে বিচার করতে পেরেছি, এটাই হচ্ছে সব থেকে বড় কথা। আজকে সেই বিচারের সাজা দেওয়া হয়েছে। আসলে হত্যা করা, মানুষের ওপর অত্যাচার করা- এটা তাদের একটা স্বভাব। তার পিতা জিয়াউর রহমান যেমন ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল। আবার তার মা (খালেদা জিয়া) এবং সে (তারেক রহমান) ২১ আগস্টের সঙ্গে জড়িত ছিল, এতে কোনো সন্দেহ নেই।

তিনি বলেন, শাস্তি যখন পেয়েছে, যেখানেই লুকিয়ে থাকুক না কেন- আল্লাহর ওপর আমার বিশ্বাস আছে, দেশের জনগণের ওপর বিশ্বাস আছে, নিশ্চয়ই একটা দিন আসবে- যারা এতো বড় জঘন্য ঘটনা ঘটিয়েছে, প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রেনেড ব্যবহার করা হয় যুদ্ধের ক্ষেত্রে। রণক্ষেত্রে যেটা ব্যবহার করা হয় সেটা প্রকাশ্য দিবালোকে রাজপথে ব্যবহার করে আমাদের যারা হত্যার চেষ্টা করেছে এবং আইভি রহমানসহ এতোগুলো মানুষকে হত্যা করেছে, তাদের বিচার যখন হয়েছে- রায় যখন হয়েছে। একদিন সাজা পেতেই হবে। সাজা ভোগ করতেই হবে।

তারেক রহমানের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছে। তাকে ফিরিয়ে আনার জন্য ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে আমরা আলাপ-আলোচনা করছি। অবশ্যই আমি বিশ্বাস করি, আল্লাহ যদি চায়, আগামী নির্বাচনে যদি আবার আমরা ফিরে আসতে পারি, এর মাঝে অবশ্যই আমরা তাকে ফিরিয়ে আনতে পারব। শাস্তি দিতে পারব- এই বিশ্বাস আমার আছে। এই জন্য আমি দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই, ভোটও চাই। যাতে আবার ফিরে এসে এই অন্যায় অবিচারের বিচার আমরা করে যেতে পারি এবং সাজাটা কার্যকর করতে পারি।


%d bloggers like this: