ঢাকা, মঙ্গলবার , ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, | ৭ ফাল্গুন ১৪২৫ | ১৩ জমাদিউস-সানি ১৪৪০

ইতিহাসে ১৫ জানুয়ারি

পৃথিবী আলোকিত হয়েছে জ্ঞানী-গুণিজনের আগমনে। তারা রচনা করেছেন সত্যের ইতিহাস। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে সেই ইতিহাস চিন্তা, চেতনা ও প্রেরণার উৎস হয়ে ওঠে। আবার বহু ঘটনাও প্রশান্তি কিংবা অনাকাঙ্ক্ষিত দুঃস্বপ্নের নীলকাব্য হয়ে আছে। সেসব ঘটনা নিয়ে আজ টুয়েন্টিফোরের আয়োজন ‘ইতিহাসে ১৫ জানুয়ারি’।

আজ ১৫ জানুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার। ০২ মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ। জেনে নিন এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

ঘটনা
১৭৫৯- লন্ডনে ব্রিটিশ মিউজিয়াম উদ্বোধন করা হয়।
১৭৮৪- স্যার উইলিয়াম জোন্সের উদ্যোগে কলকাতায় এশিয়াটিক সোসাইটি প্রতিষ্ঠিত হয়।
১৮৩৯- সেন্ট্রাল আমেরিকান ইউনিয়নের বিলুপ্তির পর এলসেলভাদর স্বাধীনতা লাভ করে।
১৮৭৩- বাংলার দ্বিতীয় সাধারণ রঙ্গালয় ওরিয়েন্টাল থিয়েটার উদ্বোধন করা হয়।
১৮৭৮- লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নারীরা প্রথম ডিগ্রি লাভের সুযোগ পান।
১৯১২- ইতালি সর্বপ্রথম প্লেন থেকে প্রচারপত্র বিলি করে লিবিয়ার আকাশে।
১৯২২- নেদারল্যান্ডসের রাজধানী হেগে স্থায়ী আন্তর্জাতিক আদালত প্রতিষ্ঠিত হয়।
১৯৩৪- বিহারে ভয়াবহ ভূমিকম্পে ২০ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়।
১৯৬০- নেপালের রাজা মহেন্দ্র সংবিধান বাতিল করে সরাসরি শাসন ক্ষমতা হাতে তুলে নেন।
১৯৭৮- যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার পিপলস রিপাবলিক অব চীনকে স্বীকৃতি দেন এবং তাইওয়ানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেন।
১৯৯৭- ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে ‘হেবরন চুক্তি’ স্বাক্ষরিত হয়। এ চুক্তিতে ফিলিস্তিনি চেয়ারম্যান ইয়াসির আরাফাত এবং ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু পশ্চিম তীরের হেবরন শহরের অধিকাংশ থেকে ইসরায়েলি সেনা প্রত্যাহার বিষয়ে একমত হন।
২০০১- ওয়েবভিত্তিক, বহুভাষিক, মুক্ত বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়া যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে এটি সব থেকে বড় এবং সর্বাধিক জনপ্রিয় ইন্টারনেটভিত্তিক তথ্যসূত্র হিসেবে ব্যবহৃত।

জন্ম
৩৭- রোমের রাজা নিরো।
১৬২২- ফরাসি অভিনেতা ও নাট্যকার মলিয়ের।
১৭৯১- অস্ট্রিয়ান লেখক, কবি ও নাট্যকার ফ্রানজ গ্রিল্পারযের।
১৭৯৫- রুশ নাট্যকার, সুরকার ও কবি আলেকজান্ডার গ্রিবয়েডভ।
১৮৩২- আইফেল টাওয়ারের স্থপতি গুস্তাভ আইফেল।
১৮৭২- রুশ লেখক এরসেন কটসইয়েভ।
১৯০৫- খ্যাতিমান বাঙালি সাহিত্যিক নৃপেন্দ্রকৃষ্ণ চট্টোপাধ্যায়। বিশেষ করে শিশুসাহিত্যে তার জনপ্রিয়তা প্রশ্নাতীত।

১৯০৯- বাঙালি কবি ও শিক্ষাবিদ কাজী কাদের নেওয়াজ।
ব্রিটিশ ভারতের মুর্শিদাবাদ জেলায় তার জন্ম। তিনি কর্মজীবনে মূলত ছিলেন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক। প্রেম ও পল্লীর শ্যামল প্রকৃতি তার কবিতায় মনোজ্ঞভাবে প্রকাশিত। তিনি শিশুতোষ সাহিত্যেও খ্যাতিমান ছিলেন। ‘মরাল’ তার বহুল সমাদৃত কাব্যগ্রন্থ এবং ‘দাদুর বৈঠক’ তার একটি সুপরিচিত শিশুরঞ্জক গদ্য রচনা। তিনি ১৯৬৩ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার ও প্রেসিডেন্ট পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৮৩ সালের ৩ জানুয়ারি কবি কাদের নেওয়াজ পরলোক গমন করেন।

১৯২৯- নোবেলজয়ী বিখ্যাত আফ্রিকান-আমেরিকান মানবাধিকার কর্মী মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র।

কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকানদের নাগরিক ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় অহিংস আন্দোলনের জন্য তিনি ১৯৬৪ সালে নোবেল শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হন।

১৯৬৮- আন্তর্জাতিক খেতাবপ্রাপ্ত বাংলাদেশি আইনজীবী ও পরিবেশকর্মী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান।

মৃত্যু
৬৯- রোমান সম্রাট গালবা।
১৯১৯- জার্মান অর্থনীতিবিদ, তাত্ত্বিক ও দার্শনিক রোসা লুক্সেমবুর্গ।
১৯৫৫- ফরাসি চিত্রশিল্পী ইয়ভেস টানগুয়।
১৯৮৮- নোবেলজয়ী ফরাসি-আইরিশ রাজনীতিবিদ সেয়ান ম্যাকব্রিডে।
১৯৯৮- ভারতীয় অর্থনীতিবিদ, রাজনীতিবিদ ও দু’বারের ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী গুলজারিলাল নন্দা।

আজ ২৪ ডেস্ক


%d bloggers like this: