ঢাকা, মঙ্গলবার , ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, | ৭ ফাল্গুন ১৪২৫ | ১৩ জমাদিউস-সানি ১৪৪০

ইতিহাসে ১৬ জানুয়ারি

পৃথিবী আলোকিত হয়েছে জ্ঞানী-গুণিজনের আগমনে। তারা রচনা করেছেন সত্যের ইতিহাস। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে সেই ইতিহাস চিন্তা, চেতনা ও প্রেরণার উৎস হয়ে ওঠে। আবার বহু ঘটনাও প্রশান্তি কিংবা অনাকাঙ্ক্ষিত দুঃস্বপ্নের নীলকাব্য হয়ে আছে। সেসব ঘটনা নিয়ে আজ টুয়েন্টিফোরের আয়োজন ‘ইতিহাসে ১৬ জানুয়ারি’।

 

আজ ১৬ জানুয়ারি ২০১৯, বুধবার। ০৩ মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ।  জেনে নিন এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

ঘটনা
১৬৬৬- ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ফ্রান্স ও নেদারল্যান্ডের যুদ্ধ ঘোষণা।
১৭৬১- ফরাসিদের কাছ থেকে পণ্ডিচেরির দখল নেয় ব্রিটিশরা।
১৭৬৮- কলকাতায় প্রথম ঘোড়দৌড় শুরু হয়।
১৯২০- লিগ অব নেশন্সের প্রথম সভা প্যারিসে অনুষ্ঠিত হয়।
১৯২২- কুমিল্লায় কবি কাজী নজরুল ইসলাম গ্রেফতার হন।
১৯২৯- বিবিসির প্রথম পত্রিকা ‘দি লিসেনার’ প্রথম প্রকাশিত হয়।
১৯৬৬- নাইজেরিয়ায় সামরিক শাসক জেনারেল আগুইয়ির ক্ষমতা গ্রহণ।
১৯৬৯- সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের দু’টো নভোযানের প্রথমবার সংযোগ সম্পাদিত হয়। সংযুক্ত হওয়ার পর এ দু’টো নভোযান মহাশূন্যে আরও চার ঘণ্টা পরিভ্রমণ করে।
১৯৭০- গাদ্দাফি লিবিয়ার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন।
১৯৭৫- অ্যাংগোলার স্বাধীনতা স্বীকৃতি দেয় পতুর্গাল।
১৯৮২- ৪৫০ বছর বিছিন্ন অবস্থা থাকার পর ভ্যাটিকান আর ব্রিটেনের মধ্যে আবার কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হয়।
১৯৯১- ইরাকের সঙ্গে যুদ্ধ ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র।
২০০০- রিকার্ডো লাগোস চিলির প্রথম সমাজবাদী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।
২০০২- জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ সর্বসম্মতিক্রমে ওসামা বিন লাদেন, আল-কায়েদা এবং অবশিষ্ট তালেবান সদস্যদের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা জারি ও সম্পদ জব্দ করার সিদ্ধান্ত নেয়।
২০০৬- আফ্রিকার প্রথম দেশ হিসেবে লাইবেরিয়ায় নারী প্রেসিডেন্ট অ্যালেন-জনসন সিরলিফের অভিষেক।

জন্ম
১৮৭৪- বিখ্যাত কানাডিয়ান কবি রবার্ট সার্ভিস।
১৯০১- বাঙালি ভাষাতাত্ত্বিক ও সাহিত্য বিশারদ সুকুমার সেন।
১৯১০- ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের বাঙালি বিপ্লবী রামকৃষ্ণ বিশ্বাস।
১৯১৯- বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মো. মনসুর আলী।
১৯৩৩- খ্যাতিমান মার্কিন লেখিকা ও সাহিত্য সমালোচক সুসান সনট্যাগ।

মৃত্যু
১৯১৫- ঢাকার নবাব খাজা সলিমুল্লাহ।
১৯৩৮- জনপ্রিয় বাঙালি কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।

তাকে ‘অপরাজেয় কথাশিল্পী’ বলা হয়। ১৮৭৬ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর ব্রিটিশ ভারতের প্রেসিডেন্সি বিভাগের হুগলি জেলার দেবানন্দপুর গ্রামে এক দরিদ্র ব্রাহ্মণ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার প্রথম উপন্যাস ‘বড়দিদি’ ভারতী পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সাহিত্য জগতে তার খ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে। এরপর তিনি একে একে বিন্দুর ছেলে ও অন্য, পরিণীতা, বৈকুণ্ঠের উইল, পল্লীসমাজ, দেবদাস, চরিত্রহীন, নিষ্কৃতি, শ্রীকান্ত, দত্তা, গৃহদাহ, দেনা-পাওনা, পথের দাবী, শেষ প্রশ্ন ইত্যাদি গল্প-উপন্যাস রচনা করেন। এরমধ্যে পথের দাবি উপন্যাসটি বিপ্লববাদীদের প্রতি সমর্থনের অভিযোগে ব্রিটিশ সরকার বাজেয়াপ্ত করে।

সাহিত্যকর্মে অসাধারণ অবদানের জন্য শরৎচন্দ্র কুন্তলীন পুরস্কার, জগত্তারিণী স্বর্ণপদক, বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদের সদস্যপদ এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিলিট উপাধি লাভ করেন।

১৯৬১- বাঙালি রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক খান বাহাদুর আবিদুর রেজা চৌধুরী।

আজ ২৪ ডেস্ক


%d bloggers like this: