ঢাকা, বুধবার , ১৭ জুলাই ২০১৯, | ২ শ্রাবণ ১৪২৬ | ১৩ জিলক্বদ ১৪৪০

ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে নিহত ৬২

ইন্দোনেশিয়ায় সুনামির আঘাতে অন্তত ৬২ জন নিহত ও ৫৮৪ জন আহত হয়েছে। দেশটির কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে রোববার(২৩ ডিসেম্বর) সকালে এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, স্থানীয় সময় শনিবার(২২ ডিসেমব্র) রাতে ইন্দোনেশিয়ার সুন্দা প্রণালীর আশেপাশের এলাকায় সুনামিটি আঘাত হানে।

ক্রাকাতোয়া আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের পর সমুদ্রের নিচে ভূমিধসই এই সুনামির সম্ভাব্য কারণ বলে মনে করছে ইন্দোনেশিয়ার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থা। তারা জানিয়েছে, সুনামির আঘাতে অন্তত ৬২ জন নিহত ও ৫৮৪ জন আহত হয়েছে। এছাড়া দু’জন নিখোঁজ রয়েছে এবং সুনামির আঘাতে শত শত ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

জাভা ও সুমাত্রা দ্বীপের মাঝখানে এই সুন্দা প্রণালীই জাভা সাগরকে ভারত মহাসাগরের সঙ্গে যুক্ত করেছে। অধিকাংশ মৃত্যুর খবর এসেছে পান্দেগলাং, দক্ষিণ লামপাং ও সেরাং এলাকা থেকে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, সুনামিতে মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। উদ্ধারকর্মীরা দুর্গত এলাকা থেকে লোকজনকে সরিয়ে নিচ্ছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের একজন মুখপাত্র সুনামির আঘাতের একটি ভিডিও টুইটারে দিয়েছেন। রাস্তায় পানির তোড়ে যানবাহন ভেসে যেতে দেখা যাচ্ছে সেখানে।

শনিবার রাতের সুনামির প্রত্যক্ষদর্শী নরওয়ের আলোকচিত্রী ওইস্তেইন লুন্ড অ্যান্ডারসন জানান, বিপুল জলরাশি যখন উঠে আসতে শুরু করে, তিনি তখন পশ্চিম জাভার আনিয়ার সৈকতে ছিলেন। ক্রাকাতোয়ার উদগীরণের ছবি তোলার চেষ্টায় ছিলেন তিনি। আর তার পরিবারের সদস্যরা হোটেলে ঘুমাচ্ছিলেন।

সন্ধ্যায় ওই আগ্নেয়গিরি লাভা উগরে দিলেও রাতে সবই ছিল বেশ শান্ত। এর মধ্যেই হঠাৎ সাগর থেকে বিশাল এক ঢেউ সৈকতে উঠে আসতে দেখে উল্টো ঘুরে দৌড়াতে শুরু করেন অ্যান্ডারসন।

তিনি বলছেন, সুনামির দুটি ঢেউ পরপর উপকূলে আঘাত হানে। এর মধ্যে প্রথমটি ততোটা জোরালো না থাকায় তিনি দৌড়ে হোটেলে ফিরতে সক্ষম হন।

হোটেলে ফিরে স্ত্রী আর সন্তানকে জাগানোর পরপরই দ্বিতীয় ঢেউ আসার শব্দ পান অ্যান্ডারসন। জানালা দিয়ে তিনি দেখতে পান, ওই ঢেউ ছিল প্রথমটির তুলনায় অনেক বড়। সেই বিপুল জলরাশি যখন হোটেল পেরিয়ে যাচ্ছিল, রাস্তায় থাকা গাড়িগুলোকে ভাসিয়ে নিচ্ছিল। এই পরিস্থিতির মধ্যে অ্যান্ডারসন এবং হোটেলের সবাই আতঙ্কে কাছে একটি উঁচু জায়গায় জঙ্গলের মধ্যে সরে যান।

আজ ২৪ বিদেশ ডেস্ক


%d bloggers like this: