ঢাকা, শনিবার , ২০ অক্টোবর ২০১৮, | ৫ কার্তিক ১৪২৫ | ১০ সফর ১৪৪০

দুই ঢাকাতে উন্নয়নের হাওয়া

দুই ঢাকা জুড়ে বইছে উন্নয়নের হাওয়া। ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের দুই অংশে জোর কদমে চলছে নানা উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ।রাস্তা, ফুটপাত, নর্দমা, ড্রেনেজ, সড়কে এলইডি লাইট, বৃক্ষরোপণ, জলাবদ্ধতা নিরসন, পথচারীদের চলাচলে পরিবেশবান্ধব পথসহ অবকাঠামো উন্নয়নের কাজ শুরু হয়েছে।

ইতোমধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে যুক্ত হওয়া আটটি ইউনিয়নের উন্নয়নকাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে। এসব এলাকার প্রায় ৬০ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে বাকি কাজগুলো শেষ হবে বলে সংশ্লিষ্টরা আশা প্রকাশ করেছেন। তবে উত্তরে উন্নয়নকাজ শুরু না হলেও নেওয়া হয়েছে নানা উদ্যোগ। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে নতুন করে যুক্ত হওয়া ১৮টি ওয়ার্ডের সড়ক অবকাঠামো ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার নির্মাণ ও উন্নয়ন (ফেজ-১) প্রকল্পের আওতায় সড়ক নেটওয়ার্ক উন্নয়নের মাধ্যেমে যান চলাচলের নিরাপত্তা বৃদ্ধি ও যানজট নিরসন, নর্দমা স্থাপন এবং খাল উন্নয়নের মাধ্যমে জলাবদ্ধতা নিরসনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

২০১৬ সালের ৯ মে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটিতে (নিকার) ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে আটটি করে ইউনিয়ন যুক্তের সিদ্ধান্ত হয়। পরবর্তীতে নবগঠিত ৩৬টি ওয়ার্ডকে দশটি অঞ্চলে বিভক্ত করা হয়। গত বছরের ৩০ জুলাই ডিএসসিসির শ্যামপুর, দনিয়া, মাতুয়াইল, সারুলিয়া, ডেমরা, মান্ডা, দক্ষিণগাঁও ও নাসিরাবাদ ইউনিয়নকে ৫৮, ৫৯, ৬০, ৬১, ৬২, ৬৩, ৬৪, ৬৫, ৬৬, ৬৭, ৬৮, ৬৯, ৭০, ৭১, ৭২, ৭৩, ৭৪ ও ৭৫ নম্বর ওয়ার্ডে বিভক্ত করা হয়।

অপরদিকে, ডিএনসিসির অন্তর্ভুক্ত বাড্ডা, ভাটারা, সাতারকুল, বেরাঈদ, ডুমনি, উত্তরখান, দক্ষিণখান ও হরিরামপুর ইউনিয়নকে ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১, ৪২, ৪৩, ৪৪, ৪৫, ৪৬, ৪৭, ৪৮, ৪৯, ৫০, ৫১, ৫২, ৫৩ ও ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডে বিভক্ত করা হয়।

ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে যুক্ত আটটি ইউনিয়নের উন্নয়নকাজের বিষয়ে মেয়র সাঈদ খোকন জানান, ৭৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে শ্যামপুর, দনিয়া, মাতুয়াইল, সারুলিয়া- এ চার ইউনিয়নের ১৫২.৩৪ কিলোমিটার রাস্তা, ৬.১০ কিলোমিটার ফুটপাত, ১৫৮.৫০ কিলোমিটার নর্দমা, ১৪৩.৪৭ কিলোমিটার রাস্তায় এলইডি লাইট, ৭০৬৩টি বৃক্ষরোপণসহ নানা অবকাঠামো উন্নয়ন কার্যক্রম দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে প্রকল্পের কাজ ৬০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই বাকি কাজ সমাপ্ত হবে।

এদিকে মান্ডা, ডেমরা, নাসিরাবাদ ও দক্ষিণগাঁও- এ চার ইউনিয়নের জন্য ৪৭৬ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬৫.৭২ কিলোমিটার রাস্তা, ৪৮ কিলোমিটার নর্দমা, ৭.৯৫ কিলোমিটার ফুটপাত, ১৭টি আরসিসি ব্রিজ নির্মাণ প্রকল্পের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে, যা টেন্ডার আহ্বানের জন্য অপেক্ষাধীন।

অপরদিকে ডিএনসিসির উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত হরিরাপুর ইউনিয় এবং পূর্বাঞ্চলের উত্তরখান, দক্ষিণখান, বাড্ডা, বারাইদ, ডুমনি, সাতারকুল ও ভাটারা ইউনিয়নসমূহ ১৮টি ওয়ার্ডে বিভক্ত করে ডিএনসিসিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ফলে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আয়তন ৮২.৬২ বর্গ কিলোমিটার থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ১৯৬.২২৮ বর্গ কিলোমিটারে দাঁড়ায়।

ঢাকা উত্তর সিটিতে যুক্ত হওয়া ওয়ার্ডের উন্নয়নকাজের বিষয়ে প্যানেল মেয়র ওসমান গণি জানান, ডিএনসিসির সঙ্গে নতুনভাবে অন্তর্ভুক্ত ১৮টি ওয়ার্ডের সড়ক অবকাঠামো ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার নির্মাণ ও উন্নয়ন (ফেজ-১) প্রকল্পের আওতায় ১৬১.৭২ কিলোমিটার সড়ক নেটওয়ার্ক উন্নয়নের মাধ্যেমে যান চলাচলের নিরাপত্তা বৃদ্ধি ও যানজট নিরসন, ২২২.৮২ কিলোমিটার নর্দমা স্থাপন এবং ২৮.৫১ কিলোমিটার খাল উন্নয়নের মাধ্যমে জলাবদ্ধতা নিরসন করা হবে।

পাশাপাশি যান ও পথচারী চলাচলের সুবিধার্থে পরিবেশবান্ধব উন্নত প্রযুক্তির ১১ হাজার ২২৪টি এলইডি লাইট স্থাপনের মাধ্যেমে কার্বন নিঃসরণ ও বিদ্যুৎ অপচয় হ্রাস করা হবে।

 


%d bloggers like this: