ঢাকা, সোমবার , ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, | ৩ পৌষ ১৪২৫ | ৯ রবিউস-সানি ১৪৪০

বাংলাদেশের বোলারদের ভালোই পরীক্ষা নিলো জিম্বাবুয়ে, প্রথম দিনে ২৩৬/৫

পরীক্ষা নিলো

অনেক অভিষেকের একদিনের বাংলাদেশের পুরো দিনটি আনন্দে কাটাতে দেয়নি সফরাকরী জিম্বাবুয়ে। বরং বাংলাদেশের বোলারদের ভালোই পরীক্ষা নিলো হ্যামিল্টন মাসকাদজার দল। সিলেট টেস্টে টসে জিতে  ব্যাটিংয়ে নেমে সফরকারীরা প্রথম দিন শেষ করেছে ৯১ ওভারে ৫ উইকেটে ২৩৬ রানে।  এ

টেস্ট ভেন্যু হিসেবে সিলেটের অভিষেক হয়েছে আজ। হয়েছে দুই টেস্ট ক্রিকেটারের অভিষেক। তবুও আনন্দ নয় বরং কপালে চিন্তার রেখা নিয়েই প্রথম দিনের মাঠ ছেড়েছে বাংলাদেশ।

টস জিতে ব্যাটিং নিতে দ্বিতীয়বার ভাবেননি জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। শুরুটা খুব একটা ভালো না হলেও মাসাকাদজা ও শন উইলিয়ামসের হাফসেঞ্চুরিতে প্রথম দিনটা ভালোভাবেই পার করেছে আফ্রিকান দেশটি। উইলিয়ামস করেছেন সর্বোচ্চ ৮৮ রান, আর মাসাকাদজার ব্যাট থেকে আসে ৫২ রান। দিন শেষে অপরাজিত আছেন পিটার মুর (৩৭*) ও রেগিস চাকাভা (২০*)।

ওপেনিং সঙ্গী ব্রায়ান চারি ফিরে গেলেও অন্যপ্রান্ত আগলে রেখেছিলেন মাসাকাদজা। চমৎকার ব্যাটিংয়ে জিম্বাবুইয়েন অধিনায়ক পূরণ করেন টেস্ট ক্যারিয়ারের অষ্টম হাফসেঞ্চুরি। লাঞ্চের আগে ৫০ পূরণ করলেও দ্বিতীয় সেশনের শুরুতে এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে পড়ে তাকে ছাড়তে হয় মাঠ। আবু জায়েদ রাহীর অফ স্টাম্পের বাইরে পড়া বল সরাসরি আঘাত করে তার প্যাডে। ফিল্ড আম্পায়ার আউট দেওয়ার পর মাসাকাদজা রিভিউ নেওয়ার আলোচনা করেন অন্যপ্রান্তে থাকা শন উইলিয়ামসের সঙ্গে। যদিও নিশ্চিত আউট জেনে রিভিউ আর নষ্ট করেননি ৫২ রান করা মাসাকাদজা।
বাংলাদেশকে পেলে জিম্বাবুয়ের উইকেট কিপার ব্যাটসম্যানের ব্যাট যেন বেশি চওড়া হয়ে ওঠে। ওয়ানডে সিরিজে দল ব্যর্থ হলেও শন উইলিয়ামস সফল ছিলেন। সেই সাফল্য তিনি টেনে নিয়ে এসেছেন টেস্টেও। প্রথম দিনের শেষভাগে বাংলাদেশের অধিনায়কের বলে মেহেদী মিরাজের অসাধারণ ক্যাচে আউট হয়ে ফেরার আগে ১৭৩ বলে ৮৮ রানের ইনিংস ভয়ংকর হয়ে ওঠার ইঙ্গত দিচ্ছিল ভালোভাবেই। ইনিংস সাজানো ছিলো নয়টি চারে। চমৎকার ব্যাটিংয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় হাফসেঞ্চুরি পূরণ করেন উইলিয়ামস।

প্রথম দিনে বাংলাদেশের সেরা বোলার তাইজুল ইসলাম। এই স্পিনার ৮৬ রান খরচায় পেয়েছেন ২ উইকেট। একটি করে উইকেট পেয়েছেন আবু জায়েদ রাহী, নাজমুল ইসলাম ও মাহমুদউল্লাহ।

অভিষেক টেস্টে সিকান্দার রাজাকে বোল্ড করে টেস্ট উইকেটের খাতা খোলেন ‘নাগিন’ নাজমুল ইসলাম অপু। বেশি দেরী করতে হয়নি অপুকে। প্রেথম টেস্টের চতুর্থ ওবারেই করায়ত্ব হয় উইকেট। অভিষেকে প্রথম উইকেট প্রাপ্তি এর চেয়ে ভালো আর হতে পারতো না নাজমুল ইসলামের জন্য। বাঁহাতি এই স্পিনারের আঘাতে জিম্বাবুয়ে হারায় চতুর্থ উইকেট। তার শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে জিম্বাবুয়ে ব্যাটসম্যান করেন ১৯ রান।

টেস্ট অভিষিক্ত সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পাঁচ দিনের ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছে অলরাউন্ডার আরিফুল হক ও স্পিনার নাজমুল ইসলামের। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয়েছে তাদের আগেই। এবার টেস্ট আঙিনাতেও পা রাখলেন আরিফুল ও নাজমুল। অলরাউন্ডার আরিফুল একাদশে দ্বিতীয় পেসার হিসেবে খেলছেন আবু জায়েদ রাহীর সঙ্গে।

সিলেটের অভিষেক টেস্ট জয় দিয়ে স্মরণীয় করে রাখতে চায় বাংলাদেশ। ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ তেমন প্রত্যাশার কথাই জানিয়েছেন। আগের ৭টি টেস্ট ভেন্যু জয় দিয়ে রাঙাতে পারেনি টাইগাররা। এবার ইতিহাস বদলানোর অপেক্ষায় স্বাগতিকরা।

এক সময় পিছিয়ে থাকলেও এখন জিম্বাবুয়ের চেয়ে অনেক এগিয়ে বাংলাদেশ। পরিসংখ্যানেই তা প্রতিফলিত। টেস্টে দুই দলের শেষ চারটি লড়াইয়েই বাংলাদেশ জয় পেয়েছে। এর মধ্যে ২০১৪ সালে বাংলাদেশ সফরে তিন ম্যাচের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল জিম্বাবুয়ে। তবে অতীতের সাফল্যে এখনও এগিয়ে অতিথিরা। দুই দলের আগের ১৪টি টেস্টে বাংলাদেশ জিতেছে ৫টি, জিম্বাবুয়ে ৬টি, বাকি ৩ ম্যাচ ড্র।

বাংলাদেশ একাদশ: লিটন দাস, ইমরুল কায়েস, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), আরিফুল হক, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, নাজমুল ইসলাম, আবু জায়েদ রাহী।

জিম্বাবুয়ে একাদশ: হ্যামিল্টন মাসাকাদজা (অধিনায়ক), ব্রায়ান চারি, ব্রেন্ডন টেলর, শন উইলিয়ামস, সিকান্দার রাজা, পিটার মুর, রেগিস চাকাভা (উইকেটরক্ষক), ব্র্যান্ডন মাভুতা, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, কাইল জার্ভিস, টেন্ডাই চাতারা।


%d bloggers like this: