ঢাকা, মঙ্গলবার , ২৩ জুলাই ২০১৯, | ৮ শ্রাবণ ১৪২৬ | ১৯ জিলক্বদ ১৪৪০

বাংলাদেশ-ভারতের অর্থনৈতিক সম্পর্ক ‘আশাজাগানিয়া’

ভারতীয়রা বাংলাদেশে কাজ করে প্রায় ৪ বিলিয়ন ডলার ( প্রায় ৩২ হাজার কোটি টাকা) উপার্জন করেন। আমরা চাই বাংলাদেশীরাও ভারতে কাজের সুযোগ পাক। কলকাতায় অনাবাসী বাংলাদেশীদের সংগঠন এনআরবি এবং বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের আয়োজিত আলোচনায় একথা বলেছেন এনআরবির চেয়ারপার্সন এমএস শেকিল চৌধুরী। তার এই বক্তব্যের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ-ভারতের অর্থনৈতিক সম্পর্ককে ‘আশাজাগানিয়া’ বলছেন বিশ্লেষকরা।

শেকিল চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের স্বপ্ন ২০৩০ এর মধ্যে বাংলাদেশ পৃথিবীর প্রথম ৩০টি সর্ববৃহৎ অর্থনীতির মধ্যে চলে আসবে। আর আমরা সেই স্বপ্ন সফল করার কাজে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি’।

বাংলাদেশের অর্থনীতিকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য এনআরবি সারা বিশ্বে কনফারেন্স করছে। কলকাতায়  বৃহস্পতিবার (৬ সেপ্টেম্বর)  এই  অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পরে এনআরবি আমেরিকা, ইংল্যান্ড এবং দুবাইতেও একইরকম অনুষ্ঠান করবে।

ভারতীয় ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে শেকিল চৌধরী বলেন, ‘আমরা আপনাদের বাংলাদেশে নিমন্ত্রণ করতে চাই’।

সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ-এর গবেষণা পরিচালক খ গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, ‘আমাদের দেশে আমরা চাই ভারতীয় ব্যবসায়ীরা আরও বেশি বিনিয়োগ করুক’। নিজের বক্তব্যে উনি বাংলাদেশে বিদেশী বিনিয়োগের ক্ষেত্রে যে সহজ নিয়ম-কানুন আছে, তা বারবার তুলে ধরেন।

মোয়াজ্জেম বলেন, ‘আমাদের দেশে ভারতীয় কম্পানির জন্য তিনটি স্পেশাল ইকনোমিক জোন করা হয়েছে। তাই ভারতীয় কম্পানিগুলো চাইলে সহজেই বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে আসতে পারে’।

ভারত বিভিন্ন দেশে অনেক বিনিয়োগ করছে। আমরা আশা করবো এবার বাংলাদেশেও বিনিয়োগ হবে’, আশাবাদ প্রকাশ করেন মোয়াজ্জেম।তিনি বলেন, ‘বাণিজ্য ঘাটতি ৩.৫ বিলিয়ন ডলার থেকে বেড়ে ৬.২ বিলিয়ন হয়েছে। আমরা চাই বাংলাদেশ থেকে যেন ভারতে রপ্তানি আরো বাড়ে। আজ ২৪ ডেস্ক


%d bloggers like this: