ঢাকা, সোমবার , ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, | ৩ পৌষ ১৪২৫ | ৯ রবিউস-সানি ১৪৪০

মার্কিন সহায়তা স্বত্বেও আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে সরকার

নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে

আফগানিস্তানে সরকারী বাহিনীকে মার্কিন সহায়তা স্বত্বেও ক্রমেই নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে আফগানিস্তান সরকার। নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের হতাহতের সংখ্যা রেকর্ড পর্যায়ে পৌছেছে। মাত্র ৫৫.৫ ভাগ এলাকার ওপর নিয়ন্ত্রন আছে সরকারের। গত সেপ্টেম্বরে যার পরিমান ছিল ৬৫ শতাংশ।

মার্কিন প্রতিষ্ঠান আফগান পুনর্গঠন বিষয়ক বিশেষ মহাপরিচালকের কার্যালয়ের (সিগার) সর্বশেষ ত্রৈমাসিক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে। গত সেপ্টেম্বরে দেওয়া আগের প্রতিবেদনে সিগার জানিয়েছিল আফগানিস্তানের ৬৫ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ করছে সরকার। ২০১৭ সালের অক্টোবর থেকে এই পরিমাণ স্থিতিশীল ছিল। তবে এবারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের ৫৫ দশমিক ৫ শতাংশ এলাকার নিয়ন্ত্রণ রয়েছে সরকারের কাছে। ২০১৫ সাল থেকে পর্যবেক্ষণ শুরুর পর সরকারি নিয়ন্ত্রণের এটাই সর্বোচ্চ কম পরিমাণ।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের তরফে সম্ভাব্য শান্তি আলোচনার জন্য তালেবানের সঙ্গে প্রাথমিক যোগাযোগ শুরু হলেও কাবুলের সরকারের ওপর মারাত্মক চাপ অব্যাহত রয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই তিন মাসে আফগানিস্তানের জেলা, জনবসতি ও অঞ্চলের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয়ে উঠেছে। তালেবানের কাছে বেশ কয়েকটি জেলার নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছে সরকার।

২০০১ সালে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের হামলা থেকে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকেই তালেবান গ্রুপ পশ্চিমাদের সমর্থিত সরকারের বিরুদ্ধে সশস্ত্র বিদ্রোহ চালাচ্ছে। চলতি বছরে গজনি এবং ফারাহতে বড় ধরণের হামলা চালালেও এখন পর্যন্ত কোনও প্রদেশের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেনি তালেবান। তবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে তাদের শক্ত নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। সিগারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের ন্যাটো নেতৃত্বাধীন সমর্থক মিশনের তথ্য অনুযায়ী সরকারি বাহিনী বিভিন্ন জেলা, জনবসতি ও অঞ্চলের ওপর বৃহত্তর নিয়ন্ত্রণ ও প্রভাব তৈরিতে ব্যর্থ হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আফগান সরকার শুধু নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে তা নয় বরং আফগান সরকার বা বিদ্রোহী কারও নিয়ন্ত্রণ নয় এমন এলাকার পরিমাণও বাড়ছে।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ছয় মাস পূর্বে এসব তথ্য আফগানিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতির ইঙ্গিত দিচ্ছে। যদিও যুক্তরাষ্ট্রের বি শেষ দূত জালমায় খলিলদাদ সম্ভাব্য শান্তি আলোচনার উপায় খুঁজতে তালেবান কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।


%d bloggers like this: