ঢাকা, মঙ্গলবার , ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, | ৪ পৌষ ১৪২৫ | ১০ রবিউস-সানি ১৪৪০

রানাতুঙ্গার বিরুদ্ধে ভারতীয় বিমানবালার যৌন হেনস্থার অভিযোগ

ভারতীয় বিমানবালার

হলিউড থেকে শুরু হওয়া ‘মি টু’ আন্দোলনের ঢেউ  বলিউডের সীমানা পেরিয়ে এবার উপমহাদেশের ক্রিকেটাঙ্গনেও ক্রীড়াঙ্গনেও আছড়ে পড়েছে। এবারে এক ভারতীয় বিমানবালার যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে ৯৬ সালের শ্রীলংকার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক অর্জুনা রানাতুঙ্গার বিরুদ্ধে। কিছুদিন আগে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর নামে ধর্ষণের অভিযোগ করে মায়োরগা নামের এক নারী।
নাম গোপন রেখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই বিমানবালা অভিযোগ করেছেন, নব্বইয়ের দশকের শুরুতে মুম্বাইয়ের একটি অভিজাত হোটেলে রানাতুঙ্গার হাতে হয়রানির শিকার হন তিনি।

তার ভাষ্যমতে, মুম্বাইয়ের একটি হোটেলে ভারত ও শ্রীলংকার ক্রিকেটাররা উঠেছিল। তাই ক্রিকেটারদের ঘরে গিয়েছিলাম অটোগ্রাফ চাইতে। সঙ্গে ছিল আমার এক সহকর্মী। সেখানে রানাতুঙ্গা প্রথমে আমাকে পানীয় দেন। হয়তো তাতে কিছু মেশানো চিল। কিন্তু আমি তা গ্রহণে অস্বীকৃতি জানাই। ওরা ছিল সাতজন, আর আমরা দুজন। এমন অবস্থায় তারা দরজা লাগিয়ে দিলো। অস্বস্তি বাড়ায় আমি ওকে (সহকর্মী) রুমে ফিরে আসার জন্য জোর করলাম।’

‘কিন্তু সে তো ততক্ষণে মোহে পড়েছে (বড় তারকাদের দেখে)। এ কারণে পুলের চারপাশে হাঁটতে যেতে চাইল তাদের সঙ্গে। তখন সন্ধ্যা সাতটা বাজে। পুলের পথটা ছিল হোটেলের পেছনের দিকে, পুরোটাই অন্ধকার। আমি পেছনে ফিরে তাকালাম, কিন্তু আমার বন্ধু আর ভারতীয় ক্রিকেটারদের কাউকেই দেখতে পেলাম না।’

হাঁটতে হাঁটতেই সে (রানাতুঙ্গা) আমার কোমর জড়িয়ে ধরে। সে এমনভাবে হাত রাখে যা আমার বক্ষদেশ স্পর্শ করছিল।’ ভয়ঙ্কর কিছু হতে যাচ্ছে এটা বুঝতে পেরে ভয়ে চিৎকার শুরু করি। ওর হাত ও পায়ে লাথি মেরেছি। রানাতুঙ্গাকে ভয়ঙ্কর পরিণতির কথা বলে ভয়ও দেখিয়েছি। বলেছি পাসপোর্ট বাতিল করে দেবো, পুলিশের কাছে জানাব। তিনি একজন বিদেশি নাগরিক হয়ে ভারতে এসে একজন ভারতীয় নারীর সঙ্গে খারাপ আচরণ করছেন। অবস্থা ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছিল। সময় নষ্ট না করে চিৎকার করলাম সেখান থেকে পালিয়ে আসি।


%d bloggers like this: